ঋণের টাকা শোধে ব্যর্থ, ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে ঋণের টাকা পরিশোধ করতে না পেরে সোহাগ মুছল্লি (২৮) নামে এক ব্যবসায়ী আত্মহত্যা করেছেন। বুধবার (২৭ নভেম্বর) দুপুরে উপজেলার জিয়া শপিং কমপ্লেক্সের ‘ইরানী বোরকা হাউজ’ থেকে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ সময় মরদেহের পাশ থেকে ‘আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়’ লেখা একটি চিরকুট উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোহাগ মুছল্লি ওই দোকানের মালিক। তিনি রামগঞ্জ পৌরসভার জগৎপুর এলাকার আবদুর রব মুছল্লির ছেলে।
মার্কেটের অন্য ব্যবসায়ীরা জানান, কর্মসংস্থান ব্যাংকসহ কয়েকটি এনজিও থেকে ব্যবসার জন্য অন্তত ১০-১৫ লাখ টাকা ঋণ নিয়েছিলেন সোহাগ। কিন্তু সেই টাকা ঠিকমতো শোধ দিতে পারছিলেন না। আজ (বুধবার) সকালেও ৫০ হাজার টাকার একটি কিস্তি পরিশোধের কথা ছিল। ধারণা করা হচ্ছে সে ভাবনায়ই তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) রাতে স্থানীয় একটি মাজার শরীফে অনুষ্ঠিত ওরশে যাওয়ার জন্য সোহাগ ঘর থেকে বের হন। এরপর আর বাড়ি ফেরেননি। সকালে কর্মচারী আকরাম হোসেন এসে দোকানের সার্টার খুলে ভেতরে ফ্যানের সঙ্গে সোহাগকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে চিৎকার দেয়। পরে আশপাশের ব্যবসায়ীরা ছুটে আসেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পৌঁছে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে।
নিহতের স্বজন ও রামগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র হানিফ পাটোয়ারী বলেন, কয়েকটি এনজিও থেকে সোহাগ ব্যবসার জন্য ঋণ নিয়েছিল। কিন্তু সঠিক সময়ে ঋণ পরিশোধ করতে পারেনি। শুনেছি আজও কোনো একজনকে টাকা দেয়ার কথা ছিল। ধারণা করা হচ্ছে টাকা দিতে পারবে না ভাবনায় সে আত্মহত্যা করেছে।

রামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন, ঋণের বিষয়টি শুনেছি। তবে সত্য কি-না জানা যায়নি। নিহতের পাশ থেকে ‘আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়’ লেখা একটি চিরকুট পাওয়া গেছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।