ইরাকে বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে নিহত অন্তত ২৮

ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর নাসিরিয়ায় একটি সেতু অবরুদ্ধ করে রাখা বিক্ষোভকারীদের ওপর সেনাদের গুলিতে ২৪ জন নিহত হয়েছে। সহিংসতায় আরো ৭০ জন আহত হয়েছে। অন্যদিকে, রাজধানী বাগদাদের বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে আরো চারজন নিহত হয়েছে।

কয়েকসপ্তাহ ধরে দেশটিতে চলমান গণবিক্ষোভের পর ইরানি কনস্যুলেট জ্বালানোর পর সহিংসতা আরো বেড়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার নাসিরিয়ার একটি ও বাগদাদের আহরার সেতু অবরুদ্ধ করে রাখা বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে নিরাপত্তা বাহিনী গুলি ও কাঁদানে গ্যাসের শেল ছুড়েছে। গতকালের ওই সংঘর্ষে নাসিরিয়ায় ২৪ জন ও বাগদাদে অন্তত চারজন নিহত হয়।

এর আগে গত বুধবার ইরাকে সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীরা দক্ষিণাঞ্চলীয় ‘নাজাফ’ শহরে অবস্থিত ইরানি দূতাবাসে আগুন ধরিয়ে দেয়। পুলিশের গুলিতে সেখানে এক বিক্ষোভকারীসহ ৩৫ জন আহত হয়। গত বুধবার রাতে এই ঘটনার পর নাজাফে কারফিউ জারি করা হয়।

ইরাকের রাজনীতিতে ইরানসহ বেশ কিছু দেশের নাক গলানোর প্রতিবাদে এ ঘটনা ঘটায় বিক্ষোভকারীরা। ইরানি দূতাবাসের বাইরে থেকে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার একপর্যায়ে তারা ভেতরে ঢুকে পড়ে। পুলিশ তাদের দমন করতে চাইলে ইরানি পতাকায়ও অগ্নিসংযোগ করে তারা।

কর্মসংস্থান, সরকারি কর্মকর্তাদের দুর্নীতির অভিযোগে সেপ্টেম্বরের শুরু থেকে রাজপথে নেমে প্রতিবাদ জানাতে শুরু করেন সাধারণ ইরাকিরা। যাতে এখন পর্যন্ত সাড়ে তিনশর বেশি মানুষ নিহত হয়েছে।